print

আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাতের পবিত্র শাহাদাতে কারবালা মাহফিল

0

নিউ ইয়র্ক : গত ২৩ সেপ্টেম্বর রোববার আহ্লে সুন্নাত ওয়াল জামাত ইউ এস এ কেন্দ্রীয় কমিটির উদ্যোগে জ্যকাসন হাইটস্থ “পালকি পার্টি হল” এ আহলে বায়তে রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহে ওয়াসাল্লাম স্মরণে শাহাদাতে কারবালা মাহফিল সংগঠনের সভাপতি আলহাজ্ব মাওলানা সৈয়দ জুবায়ের আহমদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়।
অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলোয়াত করেন আলহাজ্ব মোহম্মদ মাহাবুবুর রহমান, নাত এ রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহে ওয়াসাল্লাম পাঠ করেন মোহাম্মদ ওমর ফারুক ও মোহাম্মদ শামীম তালুকদার। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন মাওলানা মোহাম্মদ মোস্তফা কামাল। স্বাগত বক্তব্য রাখেন সংগঠনের মহাসচিব আলহাজ্ব মোহাম্মদ সেলিম উদ্দিন। মাহফিলে প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আহলে বায়াত মিশনের সম্মানীত খতিব আলহাজ্ব মুফতি সৈয়দ আনসারুল করিম আজাহারী। আরো মাহফিলে আলোচনা করেন মাওলানা আতাউর রহমান, মাওলানা আব্দুল রহিম মাহমুদ, আলহাজ্ব মোহাম্মদ ইকবাল হোসেন, মাওলানা একরামুল হক তপাদার, আলহাজ্ব মোহম্মদ আসলাম হাবীব, গিয়াস আহমদ, মাওলানা আব্দুস শুক্কুর চৌধুরী, মুরাদুল আলম চৌধুরী, মোহাম্মদ আরীফ চৌধুরী, মোহাম্মদ মনিরুল হক চৌধুরী, মোহাম্মদ শাহ আলম, মোহাম্মদ ইউসুফ আলী, মোহাম্মদ আকতারুল আলম, মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম, বদরুল আলম, সৈয়দ আকিক্কুর রহমান, সালে আহমদ, নুরুল ইসলাম প্রমূখ।
বক্তাগণ ১০ মহরম কাররাবালার বিয়োগান্তক গঠনার তাৎপর্য তুলে ধরে বলেন, শিক্ষা অন্যায়ের বিরুদ্ধে মাতা নত না করার শিক্ষা, কারাবালার গঠনার মাধ্যমে ইসলাম জিন্দা হয়েছিল। সে দিন যারা রাসূলে করিম রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহে ওয়াসাল্লাম এর কলিজার টুকরা বেহেশতী যুবকদের সর্দার সৈয়দুশ শোহাদায়ে ইমাম হোসেইন সহ আহলে বায়েতকে যারা নির্মমভাবে শহীদ করেছিলেন তারাও নামধারী মুসলমান ছিল, সেই মোনাফেক তথা এজিদের অনুসারী। এখনও মুসলমান নাম ধারণ করে বিভিন্ন ভাবে বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে। তাদের মুখোশ উন্মোচন করে মুসলমানদের ঈমাম ও আক্বিদা রক্ষায় আহলে সুন্নাত জামাত যুগে যুগে ভূমিকা পালন করে যাচ্ছে। অন্যায়কারী যত বড় শক্তিশালী হোক না কেন তার বিরুদ্ধে রূখে দাঁড়ানো কারবালার শিক্ষা। ১০মহরম গুরুত্ব পূর্ণ কারবালার গঠনার কাছে ম্লান হয়েছে। তাই মুসলিম মিল্লাতের এই মহা গুরুত্ব পূর্ন দিবসে সরকারী ছুটি ঘোষণার দাবি এবং মুসলিম রাষ্ট্র সমূহকে রাষ্ট্রীয়ভাবে শাহাদাতে কারবালা উদ্যাপনের আহবান জানান। সভাপতি তার বক্তব্যে বলেন আল্লাহ ও রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহে ওয়াসাল্লাম পরে আহলে বায়তের ভালবাসা থাকতে হবে।
পরিশেষে মিলাদ, কেয়াম ও মুনাজাত পরিচালনা করেন সংগঠনের সভাপতি আলহাজ্ব মাওলানা সৈয়দ জুবায়ের আহমদ। তিনি সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি অধ্যক্ষ মুহাম্মদ জালাল উদ্দিন আলকাদেরী (রা:) সহ আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাতের জন্য যারা আত্মত্যাগ করেছেন তাদের জন্য বিশেষ ভাবে দোয়া এবং আমেরিকা, বাংলাদেশ সহ বিশ্বের সকল মুসলমানের শান্তি কামনা করে বিশেষভাবে দোয়া করেন। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here