ধানের শীষে সুলতান মনসুর, নৌকায় উঠবেন শাহীন

9

মৌলভীবাজার : জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মৌলভীবাজারের কুলাউড়া আসনে দ্রুত পাল্টে যাচ্ছে প্রার্থিতার হিসাব-নিকাশ। যে আসনে একসময় নৌকা ও ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে মুখোমুখি লড়াইয়ে নেমেছিলেন দেশের আলোচিত দুই প্রার্থী সুলতান মোহাম্মদ মনসুর ও এম এম শাহীন, এবারের নির্বাচনে ঠিক বিপরীত মেরুতে যাচ্ছেন তারা।

ডাকসুর সাবেক ভিপি সুলতান মনসুর জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের হয়ে ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী হচ্ছেন প্রায় নিশ্চিত। আর বিকল্পধারায় যোগ দেওয়ায় মহাজোটের হয়ে নৌকায় ওঠার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে ঠিকানা গ্রুপের চেয়ারম্যান এম এম শাহীনের।

গত ১৫ নভেম্বর বিকল্পধারায় যোগ দেন বিএনপি দলীয় সাবেক এমপি ও যুক্তরাষ্ট্র থেকে প্রকাশিত সাপ্তাহিক ঠিকানা পত্রিকার সম্পাদক এম এম শাহীন। দুপুরে সাবেক রাষ্ট্রপতি বদরুদ্দোজা চৌধুরীর বারিধারার বাসভবনে এসে বি. চৌধুরীর হাতে ফুলের তোড়া দিয়ে তিনি দলে যোগদান করেন। এ সময় বিকল্পধারার মহাসচিব মেজর (অব:) আবদুল মান্নান, বিকল্পধারার প্রেসিডিয়াম সদস্য শমসের মবিন চৌধুরী ও মাহী বি. চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন।

যোগদান অনুষ্ঠানে বিকল্পধারার প্রেসিডেন্ট সাবেক রাষ্ট্রপতি বদরুদ্দোজা চৌধুরী নির্বাচন কমিশনকে নির্বাচন না পেছানোর অনুরোধ জানিয়ে বলেন, দেশে এখন নির্বাচনী উৎসব শুরু হয়েছে। দেশের সাধারণ মানুষ এখন নির্বাচনমুখী। এ সময়ে নির্বাচন পেছানো ঠিক হবে না। তিনি বলেন, নির্বাচন যাতে সুষ্ঠু হয় সে জন্য লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড করতে হবে। নির্বাচন কমিশনকে মনে রাখতে হবে, তারা এখন সরকারের কাছে দায়ী নয়। কমিশন শতভাগ স্বাধীন।

বিএনপি কার্যালয়ের সামনে সংঘটিত সহিংসতা প্রসঙ্গে বি. চৌধুরী বলেন, এ হামলা পূর্বপরিকল্পিত। এ ঘটনা তদন্তে তিনি নির্বাচন কমিশনকে একটি তদন্ত কমিটি গঠনেরও আহ্বান জানান। বি. চৌধুরী এ হামলার তীব্র নিন্দা জানান।

কুলাউড়ায় নতুন হিসাব-নিকাশ : কুলাউড়ার সাবেক তিন এমপি সুলতান মোহাম্মদ মনসুর, জাতীয় পার্টির নওয়াব আলী আব্বাছ খান ও বিএনপির এম এম শাহীনকে নিয়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে নানা জল্পনা-কল্পনা। ছিল নানা হিসাব। কিন্তু গত দুই দিনে সব হিসাব-নিকাশ পাল্টে গেছে। কারণ গত ১৫ নভেম্বর বিকেলে বিকল্পধারায় যোগ দেন সাবেক এমপি ও ঠিকানা গ্রুপের চেয়ারম্যান এম এম শাহীন।

তবে এম এম শাহীনের এই যোগদান কুলাউড়ার নির্বাচনের পুরো হিসাব-নিকাশই পাল্টে দিয়েছে। এর ফলে যুক্তফ্রন্টভুক্ত বিকল্পধারা যদি মহাজোটে যোগ দেয় এবং নিজস্ব প্রতীক বাদ দিয়ে নৌকা প্রতীকে নির্বাচন করতে যায়, তাহলে একসময়ের ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী শাহীনও হয়ে যাবেন নৌকা প্রতীকের প্রার্থী। আর মহাজোট এখানে নির্বাচন করলে আওয়ামী লীগের কোনো প্রার্থীও থাকবে না। আবার সুলতান মোহাম্মদ মনসুর নির্বাচন করবেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী হয়ে। গত ১৫ নভেম্বরই ঐকফ্রন্ট সিদ্ধান্ত নিয়েছে, তাদের ফ্রন্টভুক্ত সব দলের প্রার্থীর প্রতীকই হবে ধানের শীষ। ফলে এবার ধানের শীষের প্রার্থী হতে যাচ্ছেন সুলতান মনসুর।

কুলাউড়া আসনে ১৯৯৬ সালের জুন মাসে অনুষ্ঠিত সপ্তম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকে এমপি নির্বাচিত হয়েছিলেন ডাকসুর সাবেক ভিপি সুলতান মোহাম্মদ মনসুর। ওই নির্বাচনে ধানের শীষের প্রতীকে নির্বাচন করে হেরে গিয়েছিলেন বিএনপি প্রার্থী এম এম শাহীন। এর আগে একই বছরের ১৫ ফেব্রুয়ারির ষষ্ঠ সংসদের বিতর্কিত নির্বাচনে ধানের শীষ প্রতীকে এমপি নির্বাচিত হয়েছিলেন এম এম শাহীন।

পরে ২০০১ সালের নির্বাচনে বিএনপির মনোনয়ন না পেয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে ফুটবল প্রতীক নিয়ে বিজয়ী হয়েছিলেন তিনি। এতে আলোচনারও জন্ম দিয়েছিলেন। তবে ২০০৮ সালের নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে তিনি পরাজিত হন। অন্য দিকে সুলতান মনসুর ২০০১ সালে জোটগতভাবে নির্বাচন করায় আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পাননি। পরে ২০০৮ সালের নির্বাচনের সময় সংস্কারপন্থী হওয়ায় আওয়ামী লীগ থেকে আর নির্বাচন করার সুযোগ পাননি। এবার জাতীয় ঐক্যপ্রক্রিয়া হয়ে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট থেকে নির্বাচন করতে যাচ্ছেন তিনি। ফলে সব কিছু ঠিক থাকলে ধানের শীষেই ভোট করতে যাচ্ছেন একসময়ে নৌকার শক্তিশালী প্রার্থী সুলতান মনসুর।

এম এম শাহীন হঠাৎ করেই বিকল্পধারায় যোগদানের ঘোষণা দেন। তবে এর আগে গত ১৪ নভেম্বর পূর্বপরিকল্পনা অনুযায়ী বিকল্পধারায় যোগদান উপলক্ষে তিনি কুলাউড়ায় নিজ বাসভবনে উপজেলার ১৩টি ইউনিয়নের হাজারো নেতাকর্মী নিয়ে এক মতবিনিময়সভা করেন। এ সময় তিনি মৌলভীবাজার-২ কুলাউড়া আসন থেকে বিকল্পধারার প্রার্থী হয়ে নির্বাচন করবেন বলে ঘোষণা দেন। এছাড়া আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোটের প্রার্থী হয়েও নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পারেন বলে জানান।

বিকল্পধারায় যোগদান করার খবর নিজ নির্বাচনী এলাকায় চাউর হলে এম এম শাহীনের অনুসারী ও বিএনপি নেতাকর্মীদের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। কারো মধ্যে চাপা ক্ষোভ লক্ষ করা গেছে।

গত ১৫ নভেম্বর রাতে এম এম শাহীন বলেন, ‘বিএনপি আমার সাথে আলাপ না করে আওয়ামী রাজনীতির সাথে জড়িত ড. কামালের নেতৃত্বাধীন ঐক্যফ্রন্টের ব্যক্তিকে মনোনয়ন দেওয়ার চেষ্টা করছে।’

তিনি বলেন, ‘চলতি বছরের মে মাসে দলীয় হাইকমান্ড থেকে নিজ নির্বাচনী এলাকায় কাজ করার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়। অথচ আমাকে ও আমার নেতাকর্মীদের সাথে কোনো কথা না বলেই ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী হিসেবে ওই নেতা সুলতান মনসুরকে প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন দেওয়ার চিন্তা করছে। বিষয়টি আমি জানতে চাইলে বিএনপির মহাসচিব কোনো সদুত্তর দেননি। উনি (মনসুর) জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু সেøাগান দিয়ে মুজিব কোট পরে শহীদ জিয়ার ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করবেন, সেটা মেনে নেওয়া যায় না।’

এবার মহাজোটে যোগ দিলে নৌকা প্রতীকে নির্বাচন করার সম্ভাবনা আছে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, এই সম্ভাবনা উড়িয়ে দেওয়া যায় না।

বি. চৌধুরীর সঙ্গে যুক্তরাজ্য হাইকমিশনারের সাক্ষাৎ : বাংলাদেশে নিযুক্ত যুক্তরাজ্যের হাইকমিশনার অ্যালিসান ব্লেকের নেতৃত্বে তিন সদস্যর একটি প্রতিনিধিদল গত ১৫ নভেম্বর দুপুরে সাবেক রাষ্ট্রপতি বদরুদ্দোজা চৌধুরীর সঙ্গে তার বারিধারার বাসভবনে বৈঠক করেছে। হাইকমিশনারের সঙ্গে ছিলেন ডেপুটি হাইকমিশনার ক্যানবার হোসেইন বর ও কমিশনের রাজনৈতিক বিশ্লেষক এজাজুর রহমান। এ সময় যুক্তফ্রন্ট ও বিকল্পধারার পক্ষে উপস্থিত ছিলেন বি. চৌধুরী, মেজর (অব.) আবদুল মান্নান, শমসের মবিন চৌধুরী ও মাহী বি. চৌধুরী।

বৈঠক সম্পর্কে মাহী বি. চৌধুরী জানান, জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে আলোচনা হয়েছে। নির্বাচনে সব দলের অংশগ্রহণকে তারা স্বাগত জানিয়েছেন।

বৈঠক শেষে তারা মধ্যাহ্নভোজে অংশ নেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here