হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের জন্য বিশেষ নিরাপত্তাব্যবস্থা

3

নিজস্ব প্রতিনিধি : দেশের হিন্দু ধর্মাবলম্বী অধ্যুষিত এলাকাগুলোতে বিশেষ নিরাপত্তাব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। নির্বাচনকে কেন্দ্র করে নির্বাচনের আগে ও পরে কোনো স্বার্থান্বেষী মহল যাতে হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজনকে হুমকি-ধমকি, জোরজবরদস্তিমূলক আচরণ করতে না পারে, সে ব্যাপারে সতর্ক থেকে যথাযথ প্রশাসনিক ও আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের-ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, মেম্বার, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও স্থানীয় থানা পুলিশকে এ ব্যাপারে বিশেষ নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।
অতীতে সংসদ নির্বাচনের আগে হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজনকে নানাভাবে ভয়ভীতি প্রদর্শন এবং নির্বাচনের পর তাদের বাড়িঘরে হামলা, অগ্নিসংযোগ, জমিজমা, বিষয়-সম্পত্তি দখল করে নেওয়া, বহু স্থানে হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকদের শারীরিকভাবে নির্যাতনের ঘটনা ঘটে। এসব ঘটনাকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগ দেশে-বিদেশে ব্যাপক প্রচারণা চালায়। কিন্তু পরে ক্ষমতায় এসে আওয়ামী লীগ আইনগত ব্যবস্থা নেয়নি। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকা অবস্থায়ও কিছু স্বার্থান্বেষী মহল ব্রাহ্মণবাড়িয়া, রংপুরসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে হিন্দু সম্প্রদায়ের জমিজমা, বাড়িঘর, বিষয়-সম্পদ দখল, মন্দিরে হামলা, ভাঙচুর, লোকজনকে মারধরের অনেক ঘটনা ঘটায়। সরকার আইনগত কঠোর ব্যবস্থাও নেয়। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই স্থানীয় প্রভাবশালী মহল, ক্ষমতাসীনদের ছত্রচ্ছায়ায় থাকা স্বার্থান্বেষীরা এসব ঘটনার সঙ্গে জড়িত।
এবার নির্বাচন সামনে রেখে সরকার আগে থেকেই এ ব্যাপারে বিশেষ সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নিয়েছে। স্থানীয় সরকার বিভাগ থেকে উপজেলা পরিষদ ও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, মেম্বারদের ওয়ার্ডভিত্তিক নিয়মিত যোগাযোগ, খোঁজখবর নেওয়া, নজরদারিতে রাখতে বলা হয়েছে। থানা পুলিশকে ইউনিয়নভিত্তিক হিন্দু ধর্মাবলম্বী অধ্যুষিত এলাকায় প্রতিদিন টহল দেওয়া, বিশেষ বিশেষ এলাকায় অস্থায়ী ক্যাম্প করা, পুলিশ প্রহরা রাখতে এবং এলাকার সন্ত্রাসী, দুর্ধর্ষ প্রকৃতির লোকদের গ্রেফতার করতে বলা হয়েছে। স্থানীয় প্রভাবশালী ব্যক্তিদের নজরদারি, হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকদের মনোবল দেওয়ার জন্য উৎসাহিত করা হচ্ছে। জানা যায়, কয়েক সহ¯্র মন্দির এলাকা নজরদারিতে রাখা হয়েছে। থানার পুলিশ ও র‌্যাব নিয়মিত টহল দিচ্ছে। নির্বাচনের পরেও এ ব্যবস্থা বহাল রাখা হবে। এ ব্যাপারে নির্বাচন কমিশন থেকেও নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here