মনোনয়নপত্র বাতিল যে ৩০ কারণে

2

হুমায়ূন কবীর : একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করার জন্য ৩০ হাজার ৬৫টি মনোনয়নপত্র দাখিল করা হয়। বাছাইয়ে বাতিল হয় ৭৮৬টি মনোনয়ন। সম্ভাব্য প্রার্থীদের এতো সংখ্যক মনোনয়নপত্র বাতিলের ৩০টি কারণ পাওয়া গেছে।
রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে ইসিতে আসা তথ্য থেকে জানা যায়, লাভজনক পদে থাকা, হলফনামায় স্বাক্ষর না থাকা, অসম্পূর্ণ ফরম জমা দেয়া, এক শতাংশ ভোটার সঠিক না থাকা, ঋণ খেলাপী, বিল খেলাপীসহ ৩০ কারণে মনোনয়নপত্র বাতিল করেছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা।
সবচেয়ে বেশি বাতিল হয়েছে এক শতাংশ ভোটারের সমর্থন না থাকার কারণে। বাতিলের এ খাতায় রয়েছেন ৩২১ জন স্বতন্ত্র প্রার্থী। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ কারণ হলো ঋণখেলাপী। এ জন্য ১২৯ জনের মনোনয়ন বাতিল হয়েছে। তৃতীয় সর্বোচ্চ কারণ হচ্ছে হলফনামায় স্বাক্ষর না থাকা। এ কারণে ৬০ জনের মনোনয়নপত্র বাতিল হয়েছে।
এছাড়া দলের মনোনয়নের প্রমাণ না থাকার কারণে ৫৪ জন, লাভজনক পদের জন্য ৪৬ জন, বিল খেলাপীর দায়ে ৩৯ জন, রিটার্ন দাখিল না করার কারণে ৩১ জন, তথ্য গোপনের জন্য ২৪ জন, সাজাপ্রাপ্ত হওয়ার কারণে ১৬ জন, নমুনা স্বাক্ষরে মিল না থাকার কারণে ৫জন, ব্যাংক অ্যাকাউন্ট না খোলার কারণে ৫ জন, হলফনামায় ভুল তথ্য ও তথ্যে গড়মিলের কারণে ৫ জন, সমর্থক প্রার্থীর আসনে ভোটার না হওয়া, অবসরের পর ৩ বছর অতিবাহিত না হওয়া, চুক্তিবদ্ধ ঠিকাদার হওয়া, নোটারি পাবলিকেশনের স্বাক্ষর না থাকার কারণে ২জন করে প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল করা হয়েছে।
একজন করে বাতিল হওয়ার কারণের মধ্যে রয়েছে- ক্ষমতাপ্রাপ্ত ব্যক্তির স্বাক্ষরে অমিল, অনিবন্ধিত দলের প্রার্থী হওয়া, প্রস্তাবক ও সমর্থক একই ব্যক্তি হওয়া, জামানতের টাকা না দেয়া, অনলাইনে দাখিল করলেও বাছাইয়ের সময় মূলকপি দাখিল না করা, প্রার্থীর নাম ও আসন নম্বর ফ্লুইট দিয়ে পরিবর্তন করা, ভোটার তালিকায় প্রার্থীর নাম না থাকা, মনোনয়নপত্র ঘষামাজা করা ও ফ্লুইট দিয়ে মোছা, প্রস্তাবক ও সমর্থক সঠিক নয়, প্রার্থীর ভোটার নম্বও ভুল, প্রার্থী বাংলাদেশের ভোটার নয়, তফসিল ঘোষণার আগের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করা ও ব্যাংক অ্যাকাউন্টের নম্বর না দেয়া।
এছাড়া বেশ কিছু মনোয়নপত্র একাধিক কারণে বাতিল করা হয়েছে বলেও রিটার্নিং কর্মকর্তাদের পাঠানো প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here