যথাযোগ্য মর্যাদায় প্রবাসে বড়দিন উদযাপিত

6

ঠিকানা রিপোর্ট : ২৫ ডিসেম্বর ছিল খ্রীস্টানদের প্রধান ধর্মীয় উৎসব বড়দিন (খ্রীস্টমাস)। প্রভু যীশুর জন্মদিন। স্বদেশের ন্যায় প্রবাসেও যথাযোগ্য মর্যাদা ও ধুমধামের সাথে খ্রীস্টান ধর্মাবলম্বীদের
সবচেয়ে বৃহৎ ধর্মীয় উৎসব বড় দিন উদযাপিত হয়েছে। সকালে চার্চে চার্চে প্রার্থনা দিয়ে দিনটি শুরু হয়। কুশল বিনিময়, কেক কাটা, ভাল ভাল খাবারের আয়োজনে দিনটিকে উৎসবমুখল করে তোলা হয়।
বড় দিন উপলক্ষে করোনার ইভান জেলিক্যাল বেঙ্গলি চার্চ ও বেথাল ব্যাপটিস্ট চার্চে বিশেষ কর্মসূচি পালন করা হয়। এ দিনে কন্সাল জেনারেল সাদিয়া ফয়জুন্নেসার সাথে নিউইয়র্ক ও নিউজার্সিতে বসবাসরত বাংলাদেশ খ্রীস্টান এসোসিয়েশন অব নিউইর্য়ক এন্ড নিউজার্সি ইনক.-এর এক প্রতিনিধি দল বাংলাাদেশী খ্রীস্টানদের পক্ষে সৌজন্য সাক্ষাত করেন ও শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। একই সাথে তারা বড়দিনের বিশেষ কেক কাটায় অংশ নেন।
বাংলাদেশে বড়দিন যেন শান্তি পূর্ণভাবে পালিত হতে পারে এবং আইন শৃঙ্খলা স্বাভাবিক রাখতে র্সবদা যেন প্রশাসনিক নজর দারি বিদ্যমান থাকে এই মর্মে স্বরাষ্ট মন্ত্রীর সাথেও বাংলাদেশ খ্রীস্টান এসোসিয়েশন সাক্ষাত করেছেন। নিউইর্য়কেও বাংলাদেশী খ্রীস্টানগণ বাংলাদেশের প্রতিনিধি কন্সাল জেনারেলের সাথে সাক্ষাত করে সৌর্হাদ্যপূর্ণ সম্পর্ক স্থাপন করেন। প্রতিনিধি দলের সাক্ষাতের শুরুতে এসোসিয়েশনের প্রেসিডিন্ট জেমস কোড়াইয়া শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন। তিনি বলেন, সাধারণত বড়দিনের পূর্বে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী, বাংলাদেশ খ্রীস্টান এসোসিয়েশনের নেতৃত্বে খ্রীস্টভক্তদের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন এবং বড়দিনের বিশেষ কেক কেটে আনন্দের শরিক হন। তাই আমরাও আশাবাদী যেভাবে আমরা বাংলাদেশে জাতি-ধর্ম-নির্বিশেষে স্ব-অবস্থানে একাত্ম থেকেছি এখানে, এই প্রবাসের মাটিতেও সেই স্ব-অবস্থান বজায় রাখতে বদ্ধ পরিকর। আপনার মধ্য দিয়ে আমরা অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশের চেতনা আর শান্তির বাণী এই প্রবাসে প্রতিটি বাংলাদেশী ভাই-বোনদের মাঝে ছড়িয়ে দিতে চাই। ধর্ম যার যার কিন্তু ঊৎসব সবার- এই চেতনায় আমরা ঊদ্ধুদ্ধ হয়েই আজ এখানে সমবেত হয়েছি।

শুরুতেই এসোসিয়েশনের আধ্যাত্মিক উপদেষ্টা ফাদার ফ্রান্সিস সুনীল রোজারিও সারা বিশে^র শান্তির জন্য প্রার্থনা পরিচালনা করেন। এসোসিয়েশনের উপদেষ্টা এবং হিন্দু -বৌদ্ধ-খ্রীস্টান ঐক্য পরিষদেও প্রেসিডেন্ট ডা: টমাস দুলু রয় বড়দিনের শুভেচ্ছা জানান। কন্স্যুলেট জেনারেল শুভেচ্ছা বক্তব্যে সকলকে ধন্যবান জানান এবং সকলকে ফুলেল শুভেচ্ছায় বরণ করে নেন। তিনি তার বক্তব্যে আহ্বান জানান জাতি-ধর্ম-নির্বিশেষে সকলে একসাথে কাজ করে যাবেন। তিনি র্আও বলেন বাংলাদেশই একমাত্র দেশ যেখানে প্রতিটি ধর্মের প্রধান উৎসবে সরকারী ছুটি রয়েছে। বাংলাদেশকে আরও সমৃদ্ধশালী করে গড়ে তুলতে সকলকে তিনি আহ্বান জানান। এসোসিয়েশনের ভাইস-প্রেসিডেন্ট স্যামসন পন্ডিত সকলের উদ্দ্যেশে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। ১৬ সদস্যের প্রতিনিধি দলের এসোসিয়েশনের সাংস্কৃতিক সম্পাদিকা সোমা মার্সিয়া গমেজ ও তার পরিবার, মানবধিকার কর্মী রোজলীন কস্তা , যুব সদস্য জেরী কোড়াইয়া ছাড়্ওা চন্দ্রা কোড়াইয়া, সুইটি কস্তা , ভিনসেন্ট কস্তা উপস্থিত ছিলেন।
কন্সাল জেনারেল অফিসের সকলের উপস্থিতিতে এবং এসোসিয়েশনের প্রতিনিধি দলের সকলের উপস্থিতেতে কন্সাল জেনারেল বড়দিনের কেক কেটে আনন্দের শরিক হন। অনুষ্ঠানের সঞ্চালনার দায়িত্বে ছিলেন এসোসিয়েশনের জয়েন্ট সেক্রেটারি জনী জন গোমেজ।
টনি ডায়াস ও প্রিয়া ডায়াসের বড়দিনের পার্টিতে তারার মেলা

বড়দিন উপলক্ষে সোমবার তারকা দম্পতি টনি ডায়াস ও প্রিয়া ডায়াসের লং আইল্যান্ডের বাড়িতে সম্মিলন ঘটে দেশের অনেক তারকাদের। একে অপরকে কাছে পেয়ে তারা জম্পেস আড্ডায় মেতে ওঠেন। এদিন ক্রিসমাস ট্রি আর বাহারি নানা কিছু দিয়ে নিজের বাড়িটি সুন্দর করে সাজান টনি-প্রিয়া ডায়াস দম্পতি। তাদের একমাত্র কন্যা অহনা অতিথিদের বাড়িতে অভ্যর্থনা জানান। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন অভিনয়শিল্পী কুমকুম হাসান, করবী মিজান, তমালিকা কর্মকার, রোমানা খান, রিচি সোলায়মান, মিলা হোসেন, ইপসিতা শবনম শ্রাবন্তী, নওশীন নাহরীন, প্রত্যাশা, খায়রুল ইসলাম পাখি, আদনান ফারুক হিল্লোল, শিবলী নোমানী, সুলতান বোখারী, উপস্থাপক আনিসুর রহমান দীপু ও সাদিয়া খন্দকার, মডেল চৈতী, নাট্যকার লিপি মনোয়ার এবং নির্মাতা ও প্রযোজক মনোয়ার পাঠান প্রমুখ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here