অবৈধ অভিবাসীর হাতে কর্পোরাল রনিং সিংহ খুনের ঘটনায় সান ফ্রান্সিসকোতে অসন্তোষের ঝড়

3

ঠিকানা ডেস্ক: মেক্সিকান অবৈধ অভিবাসী গুস্টাভো পেরেজ আরিয়াগার হাতে নিউম্যান পুলিশ কর্পোরাল রনিল সিং খুনের ঘটনায় সান ফ্রান্সিসকোতে কয়েকদিন ধরে বিক্ষোভের ঝড় বইছে। ২৯ ডিসেম্বর জানা যায়, উন্নত জীবন এবং উজ্জ্বল ভবিষ্যত গড়ার স্বপ্ন বুকে নিয়ে রনিল সিং ফিজি থেকে যুক্তরাষ্ট্রে আগমন করেছিলেন এবং ক্যালিফোর্নিয়ার ছোট শহরের ১২ সদস্যবিশিষ্ট নিউম্যান পুলিশ বিভাগে যোগ দিয়েছিলেন। ইংরেজির জ্ঞানভান্ডারকে সমৃদ্ধ করার মাধ্যমে উচ্চাভিলাষী সিং উজ্জ্বল ভবিষ্যত গড়ার স্বপ্নে বিভোর ছিলেন । অথচ অবৈধ অভিবাসী পেরেজ আরিয়াগার গুলিতে কর্পোরাল সিংয়ের যাবতীয় স্বপ্নসৌধ ভূলুন্ঠিত হয়েছে।
পুলিশ ২ দিন ধরে সর্বত্র গরুখোঁজা করে ও চিরুনি অভিযান চালিয়ে অবৈধ খুনী পেরেজ আরিয়াগাকে গ্রেপ্তারে সক্ষম হয়েছেন। গোড়ার দিকে আইনগত অসুবিধের কারণে পুলিশ কুখ্যাত খুনীর প্রকাশ না করলে ব্যাপক অভিযান চালিয়ে শেষ পর্যন্ত সশস্ত্র হিং¯্র প্রকৃতির খুনী পেরেজ আরিয়াগাকে সান ফ্রান্সিসকোর ১০০ মাইল দক্ষিণপূর্ব এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করেছে । স্টানিসলাউস কাউন্টি শেরিফ এডাম ক্রিস্টিয়ানসন বলেন, সন্দেহভাজন খুনী আমেরিকার বৈধ অভিবাসী নয়। এদেশে বাস করার কোন অধিকার তার নেই। সে আগাগোড়া ক্রিমিনাল। তবে কখন সে যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ করেছিল সে ব্যাপারে পুলিশ নিশ্চিহ হতে পারেনি। তবে আরিজোনা দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের পর থেকে সে একটি সংঘবদ্ধ দুষ্ট চক্রের সাথে জড়িত ছিল।
এদিকে নিউম্যান পুলিশ প্রধান র‌্যান্ডি রিচার্ডসন অশ্রুসিক্ত নয়নে বলেন, নিহত ৩৩ বছর বয়স্ক সিং অত্যন্ত চৌকস ও নিবেদিতপ্রাণ কর্মকর্তা ছিলেন। দেশপ্রেমিক সিংয়ের এক নবজাতক পুত্র রয়েছে বলেও তিনি জানান। যুক্তরাষ্ট্রের কল্যাণে নিয়োজিত করার জন্যই তিনি আমেরিকায় পাড়ি জমিয়েছিলেন বলে রিচার্ডসন জানান। রিচার্ডসন আরও জানান, প্রত্যহ ২ ঘন্টা গাড়ি চালিয়ে সিং ইউবা সিটি পুলিশ একাডেমীতে যোগ দিতেন। রিজার্ভ অফিসার হিসেবে সিং মার্চেড কাউন্টি শেরিফের দপ্তরে যোগ দিয়েছিলেন এবং ২০১১ সালে নিউম্যান পুলিশ ফোর্সে যোগ দেয়ার আগে অ্যানিমল কন্ট্রোল অফিসার হিসেবে থারলকে দায়িত্ব পালন করেন।
ইংরেজি ছিল সিংয়ের তৃতীয় ভাষা এবং ইংরেজিতে অন্যের সাথে যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নে তিনি প্রাণান্ত প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছিলেন। উল্লেখ্য, আমেরিকাতে অবৈধদের অনুপ্রবেশ ঠেকাতে সীমান্ত প্রাচির নির্মাণ নিয়ে কংগ্রেসের সাথে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের রীতিমত টাগ অব ওয়ার চলছে। এমনকি আংশিক শাটডাউনেরও ইতোমধ্যে অষ্টম দিবস চলছে। ঠিক সেই মুহূর্তে একজন অবৈধ অভিবাসীর গুলিতে নিবেদিতপ্রাণ পুলিশ কর্মকর্তা সিংয়ের প্রাণহানি নিঃসন্দেহে অভিবাসন আইনের উপর ব্যাপক ফেলবে।
কর্পোরাল সিংয়ের প্রাণহানির পর এক টুইট বার্তায় বলেন, বর্ডার সিকিউরিটি ( সীমান্ত নিরাপত্তা) প্রশ্নে এখনই কঠোরতর পদক্ষেপ নিতে হবে। এ ব্যাপারে বিন্দুমাত্র ছাড় দেয়ার অবকাশ নেই। তিনি আরও বলেন, বিল্ড দ্য ওয়াল ( প্রাচির নির্মাণ করুন)। কর্পোরাল সিং খুন হওয়ার ক্ষণিক পূর্বে একটি কনভেনিয়েন্স স্টোরের সাভিল্যান্স লেন্সে সন্দেহভাজন খুনীর পেরেজ আরিগায়ার ছবি ধরা পড়েছিল। পুলিশ কর্মকর্তাগণ জানান, মাতাল অবস্থায় গাড়ি চালানোর অভিযোগে পুলিশ কর্পোরাল সিং খুনী পেরেজ আরিয়াগাকে রেড লাইনে থামিয়ে ছিলেন। তিনি তার কাগজপত্র তদন্তের কালেই খুনী পেরেজ আরিয়াগা গুলি চালিয়েছিল। পুলিশ কর্পোরাল সিঙও খুনীকে মোকাবেলা করেছিলেন এবং রেডিও মারফত অপর পুলিশ কর্মকর্তাদের বিষয়টি অবহিত করেন। এমনকি আত্মরক্ষার্থে তিনি আক্রমণকারীকে গুলি করেছিলেন বলেও জানা যায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here