যে দেশের বৃদ্ধরা জেলে যেতে চান

1

বিশ্বচরাচর ডেস্ক : জাপানে এখন বৃদ্ধদের অপরাধ বাড়ছে। দেশটিতে যাদের বয়স ৬৫ বছরের বেশি তারা নানা ধরনের অপরাধে জড়িয়ে পড়ছে। হিরোশিমার একটি বাড়িতে বসবাস করেন ৬৯ বছর বয়সী তোশিও তাকাতা। কিছুদিন কারাগারে থাকার পর তিনি সম্প্রতি মুক্ত হয়েছেন। কারাগারে যাওয়ার জন্য তিনি ইচ্ছে করে আইন ভঙ্গ করেছেন। এর কারণ হচ্ছে, তিনি বিনা খরচে একটি থাকা-খাওয়ার জায়গা খুঁজছিলেন। সেটি কারাগার হলেও মন্দ নয়।

তোশিও বলেন, আমি এখন পেনশনের ওপর নির্ভরশীল। আমার অর্থ ফুরিয়ে গেছে। সেজন্য আমি ভাবলাম যদি কারাগারে থাকি তাহলে হয়ত বিনা খরচায় থাকতে পারব। কারাগারে যাওয়ার জন্য তিনি একটি বুদ্ধি বের করলেন। রাস্তার পাশ থেকে একটি বাইসাইকেল নিয়ে সেটি চালিয়ে সোজা পুলিশের কাছে গিয়ে হাজির হন। তিনি বলেন, পুলিশের কাছে গিয়ে বললাম, আমি এটা চুরি করেছি। এতে কাজ হলো। এটা ছিল তোশিওর প্রথম অপরাধ, যখন তার বয়স ছিল ৬২ বছর। জাপানের আদালতে ছোট-খাটো চুরির বিষয়গুলোকে বেশ গুরুত্ব সহকারে গ্রহণ করা হয়। ফলে তোশিওকে এক বছরের কারাদÐ দেয়া হলো। তোশিওকে দেখে একেবারেই স্বভাবজাত অপরাধীর মতো মনে হয় না। তাকে দেখে কখনও মনে হয় না যে, তিনি ছুরি হাতে নিয়ে রাস্তায় কাউকে ভয় দেখাতে পারেন। কিন্তু প্রথম দফা কারাগার থেকে মুক্ত হওয়ার পর তিনি সে কাজটিই করেছেন।

জাপানের মানুষ ভীষণভাবে আইন মেনে চলে। যারা অপরাধ করছেন তাদের বয়স ৬৫ বছরের ঊর্ধ্বে। ১৯৯৭ সালে প্রতি ২০ জনের মধ্যে একজন অপরাধী ছিলেন ৬৫ বছরের উর্ধে মানুষ। কিন্তু এখন প্রতি পাঁচজনের মধ্যে একজন অপরাধী হলেন ৬৫ বছরের ঊর্ধ্বে। তোশিওর মতো ৬৫ বছরের বেশি বয়সী অনেকে বারবার অপরাধ করছেন। ২০১৬ সালে ৬৫ বছরের বেশি বয়সীদের মধ্যে অপরাধীর সংখ্যা প্রায় আড়াই হাজার, যাদের মধ্যে এক-তৃতীয়াংশ পাঁচ বারের বেশি দণ্ডিত হয়েছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here