প্রবীণ আলেম মাওলানা শায়খ আবদুল কাদির স্মরণে আলোচনা সভা

7

নিউইয়র্ক : বিশিষ্ট আলেমে দ্বীন মাওলানা শায়খ আবদুল কাদির রাহ: স্মরণে নিউইয়র্কের ইমাম-উলামার উদ্যোগে এক আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। গত ৩০ জানুয়ারি বাদ মাগরিব ওজনপার্কের মসজিদ আল আমানে ম্যানহাটনের আস সাফা ইসলামিক সেন্টারের ইমাম ও খতীব মাওলানা রফিক আহমদ রেফাহীর সাবলীল পরিচালনায় মরহুম আবদুল কাদির রাহিমাহুল্লাহ’র জীবন ও কর্ম নিয়ে আলোচনা পেশ করেন বায়তুশ শরফ মসজিদ ও  ইসলামিক সেন্টার ব্রুকলীনের ইমাম ও খতীব মাওলানা জাকারিয়া মাহমুদ,জামেয়া ইসলামিয়া উডহ্যাভেনের ইমাম ও খতীব মাওলানা শায়খ আসআদ আহমদ,দারুল কুরআন ও সুন্নাহ’র মুহাদ্দিস মাওলানা হাম্মাদ আহমদ গাজীনগরী, মিশিগানের মসজিদ নূরের ইমাম ও খতীব মাওলানা আবু সিদ্দিক ও বায়তুল গাফফার মসজিদ জ্যামাইকার ইমাম ও খতীব মাওলানা মাসুক আহমদ প্রমুখ।

দোয়া মাহফিলে অন্যান্যের মধ্যে বায়তুল আমান মসজিদ ব্রঙ্কসের ইমাম ও খতীব মাওলানা আজির উদ্দীন,মরহুম শায়খ আবদুল কাদির রাহঃ এর বড় ছাহেবজাদা দারুল উলূম নিউইয়র্ক এর সিনিয়র উস্তাদ মাওলানা আবুল খায়ের,জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টারের জামেয়া কুরআনিয়া মাদরাসার উস্তাদ হাফেজ মাওলানা আহমদ আবু সুফিয়ান,আই টিভির সিইও মাওলানা মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ,ইয়র্ক বাংলা সম্পাদক মাওলানা রশীদ আহমদ,রিহলাতুল ইলম ফাউন্ডেশন,পেনসিলভ্যানিয়ার সিনিয়র উস্তাদ মাওলানা আবু সাঈদ,মাওলানা আবু জাহিদ, মরহুমের জামাতা ও রিহলাতুল ইলম ফাউন্ডেশন,পেনসিলভ্যানিয়া মাদরাসার প্রিন্সিপাল মুফতি মোহাম্মদ কাওসার,মসজিদ আল আমানের সভাপতি কবীর আহমদ চৌধুরী, সেক্রেটারি খলীল আহমদ, দারুল উলূম নিউইয়র্ক এর উস্তাদ মুফতী মুজিবুর রহমান,মসজিদ আল আমানের ইমাম ও খতীব মাওলানা মোহাম্মদ আলী,সানী ইমাম মাওলানা আহমাদুল হাসান খান,পিআইসির হিফজ বিভাগের উস্তাদ হাফেজ মাওলানা কামীল আহমদ,হাফেজ জুনাইদ আহমদ ও হাফেজ তাজুল ইসলামসহ অনেক উলামায়ে কেরাম ও সাধারণ মুসল্লিয়ান উপস্থিত ছিলেন।

সভায় আলোচকরা বলেন, সিলেটের ঐ প্রবীণ আলেম ছিলেন একজন সত্যিকারের দ্বীনের খাঁটি মরদে মুজাহিদ। তিনি তাঁর পুরো জীবন  দ্বীনি শিক্ষা বিস্তারে ব্যয় করেছেন এবং বিভিন্ন মসজিদ মাদরাসায় নিরলস এবং সুনামের সাথে খেদমত করে অবদান রেখে গেছেন, যা দেশ ও প্রবাসের মানুষের কাছে অবিস্মরণীয় হয়ে থাকবে। তাঁর মৃত্যুতে কমিউনিটির সৃষ্ট শূন্যতা কোনভাবে পূরণ হবার নয়।তিনি তাঁর কর্মজীবন সুনামগঞ্জের জাউয়ার একটি মাদরাসায় শিক্ষকতা দিয়ে শুরু করে সর্বশেষ বিশ্বের রাজধানী হিসেবে খ্যাত নিউইয়র্কের সানিসাইড মসজিদে ইমামতির মাধ্যমে খেদমতের ইতি টানেন।

শায়খ আবদুল কাদির রাহ: এর কর্মময় জীবনী আলোচনা করতে গিয়ে আলোচকরা আবেগাপ্লুত হয়ে বলেন,একজন আলেমের মৃত্যু একটা আলমের মৃত্যুর সমান। আলোচনায় ফুটে উঠে মরহুম আবদুল কাদির রাহঃ প্রবাসের জন্য কতবড় নেয়ামত ছিলেন।

তিনি নিউইয়র্কে আলেম উলামায়ে কেরামদের যে কোন মজলিসে উপস্থিত হতেন এবং সভাপতির আসন অলংকৃত করতেন। তিনি ছিলেন নিউইয়র্কের সকল উলামায়ে কেরামের কাছে সর্বজন শ্রদ্ধেয় একজন আলেমে দ্বীন।বিশেষ করে তিনি যে প্রবাসে থেকেও তাঁর সকল(৮জন ছেলে ও ৩জন মেয়েকে) সন্তান-সন্ততিদের আলেম-আলেমাহ বানিয়ে দৃষ্টান্ত স্থাপন করে গেছেন তা কিন্তু যুগ যুগ ধরে দেশ ও প্রবাসী কমিউনিটির কাছে ইতিহাস হয়ে  থাকবে।আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে মরহুম শায়খ আবদুল কাদির রাহঃ  এর মাগফিরাত কামনা করে মোনাজাত পরিচালনা করেন নেদাউল ইসলাম মাদরাসা নিউজার্সীর সাবেক উস্তাদ হাফেজ তাইয়্যিব আলী।

উল্লেখ্য যে,যুক্তরাষ্ট্রের বাঙালি কমিউনিটির অত্যন্ত শ্রদ্ধাভাজন ব্যক্তিত্ব, হাজারো আলিমদের উস্তাদ,প্রবীণ আলেমে দ্বীন মাওলানা শায়খ  আব্দুল ক্বাদির গত ১৮ জানুয়ারি শুক্রবার  সকাল আটটায় মিশিগানে ইন্তেকাল করেন। উনার নামাজে জানাযা ১৯ জানুয়ারি  শনিবার মিশিগানের ডেট্রয়েট সিটিতে অবস্থিত মসজিদ আন-নূরে সম্পন্ন করে সেখানেই দাফন কাফন শেষ হয়। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৮৫ বছর।

উল্লেখ্য তার দেশের বাড়ি সিলেট জেলার কানাইঘাট উপজেলায়।দেশে থাকাকালীন তিনি কানাইঘাট মনসুরিয়া কামিল মাদরাসা এবং বিয়ানীবাজার সিনিয়র মাদরাসার প্রিন্সিপালের দায়িত্ব পালন করেছেন। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here