14

ঠিকানা অনলাইন ডেস্ক, ঢাকা : ডিম বালক (এগ বয়) খেতাবের আড়ালে হারিয়ে যেতে বসেছে উইল কনোলি আসল নামটি। সারা বিশ্ব এখন তাকে এগবয় বা ডিম বালক নামেই চেনে। নিউজিল্যান্ডের মসজিদে সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় বিতর্কিত মন্তব্য করায় অস্ট্রেলিয়ান সিনেটর ফ্রেসার অ্যানিং-এর মাথায় ডিম ফাটিয়ে এর প্রতিবাদ জানিয়েছিল উইল। আর এতেই রীতিমতো বীর উপাধি পেয়ে গেছে সে।

অস্ট্রেলিয়ার তরুণীদের ‘ড্রিম’ এখন ডিমবালককে ঘিরে। ডিম বালকের বীরত্বে মুগ্ধ তারা। অস্ট্রেলিয়ান তরুণীরা এখন তার প্রশংসায় পঞ্চমুখ। তবে কেবল প্রশংসাই নয়, শত শত অস্ট্রেলিয়ান তরুণী তাকে দিচ্ছেন বিয়ের প্রস্তাবও। সিনেটর ফ্রেসারের পদত্যাগ দাবিতে ক্যানবেরার রাস্তায় হাজার হাজার মানুষ বিক্ষোভে নামেন।

বিক্ষোভে অংশ নেওয়া বেশ কিছু তরুণীকে দেখা যায়, মেরি মি এগবয় সংবলিত প্ল্যাকার্ড। তারা ওই ডিমবালককে বিয়ের প্রস্তাব দেন এভাবেই। কেউ কেউ চিৎকার করে বলছিল, আমি তোমাকে বিয়ে করতে চাই ডিমবালক। আরেকটি প্ল্যাকার্ডে লেখা হয়, বর্ণবাদী মন্তব্যের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানানোর মাধ্যমেই ডিমবালক সত্যিকারের পুরুষে পরিণত হয়েছে।

এর আগে ফ্রেসার অ্যানিং নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে মসজিদে হামলার জন্য মুসলিম অভিবাসীদেরকেই দায়ী করেন। তার এ মন্তব্যকে তীব্র বর্ণবাদমূলক আখ্যা দিয়ে দেশজুড়ে তার পদত্যাগের দাবিতে আন্দোলন শুরু হয়। একই সঙ্গে তার পদত্যাগ দাবি করে তৈরি এক পিটিশনে ইতিমধ্যে স্বাক্ষর করেছে প্রায় ১ কোটি ৩০ লাখ মানুষ। বিক্ষোভে মুসলিমদেরকে সাহায্য ও সমর্থনের আশ্বাসও দেয় সাধারণ অস্ট্রেলীয় নাগরিকরা।

ডিম বালক এখন এতোই জনপ্রিয় তার ছবি সম্বলিত টিশার্ট কিনতে পড়েছেন তরুণ-তরুণীরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here