7

ঠিকানা অনলাইন ডেস্ক, ঢাকা: বগুড়ায় জনাকীর্ণ বাজারে বিএনপি নেতা মাহবুব আলম শাহীনকে ছুরিকাঘাতে খুন করেছে দুর্বৃত্তরা। রোববার রাত সাড়ে ১০টার দিকে বগুড়ার উপশহর বাজারে ১০তলা বিল্ডিংয়ের সামনে এই ঘটনা ঘটে।

নিহত শাহীন বগুড়া সদর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও পেশায় আইনজীবী। তাঁর বাড়ি উপশহরের ধরমপুর এলাকায়।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, উপশহর বাজারে ১০তলা বিল্ডিংয়ের সামনে মাহবুব আলম শাহীন মোবাইল ফোনে কথা বলছিলেন। আকস্মিকভাবে পাঁচ থেকে ছয়জন দুর্বৃত্ত তাঁকে এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাত করে দ্রুত সটকে পড়ে। স্থানীয় ব্যক্তিরা মাহবুবকে উদ্ধার করে প্রথমে একটি ক্লিনিকে এবং পরে আড়াই শ শয্যার মোহাম্মদ আলী হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

এই হামলার সময় মাহবুব আলমের সঙ্গে ছিলেন বগুড়া সদর উপজেলার নুনগোলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আলিমুদ্দীন। তিনি বলেন, তাঁরা একসঙ্গে বাজারে গল্প করছিলেন। এরই মধ্যে মাহবুবের ফোনে একটি কল আসে। তিনি কল রিসিভ করে কথা বলতে বলতে প্রায় পাঁচ ফুট দূরে সরে যান। এ সময় বাজারে আগে থেকে অবস্থান নেওয়া পাঁচ থেকে ছয়জন দুর্বৃত্ত মাহবুবের ওপর হামলা করে। মুহূর্তের মধ্যে তাঁকে এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাত করে দুই থেকে তিনজন একটি মোটরসাইকেলে করে, বাকিরা দ্রুত হেঁটে পালিয়ে যায়।

হামলার পর ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন বগুড়া জেলা পুলিশ সুপার আলী আশরাফ ভূঁঞা ও বগুড়া সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সনাতন চক্রবর্তী। তাঁরা জানান, এই হত্যাকাণ্ডের কারণ প্রাথমিকভাবে বলা যাচ্ছে না, তবে পুলিশ বিষয়টি খতিয়ে দেখছে।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সনাতন চক্রবর্তী বলেন, পূর্ব শত্রুতার জেরে এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে থাকতে পারে। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। বিএনপি নেতা মাহবুবের লাশ মোহাম্মদ আলী হাসপাতাল থেকে ময়নাতদন্তের জন্য শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here