তায়কোয়ান্দোতে ‘ব্ল্যাক বেল্ট’ পেলেন ট্রাম্প

    ছবি সংগৃহীত

    ঠিকানা অনলাইন : দক্ষিণ কোরিয়ার কুকিওনকে বলা হয় তায়কোয়ান্দোর সদর দপ্তর। এই দপ্তরের পক্ষ থেকেই এবার ব্ল্যাক বেল্ট পেলেন সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। সম্মানসূচক এই বেল্টটি ট্রাম্পের কোমরে বেঁধে দিয়েছেন স্বয়ং কুকিওন প্রেসিডেন্ট লি ডং-সিওপ। সম্প্রতি তিনি ফ্লোরিডায় অবস্থিত ট্রাম্পের বিখ্যাত মার-এ-লাগো বাসভবনে সফর করেছিলেন।

    ২২ নভেম্বর সোমবার ডেইলি মেইলের এক প্রতিবেদনের বরাতে জানা গেছে, সম্মানসূচক ওই বেল্টটি ‘নবম ডেন ব্ল্যাক বেল্ট’ হিসেবে সম্মানজনক। এই বেল্ট পাওয়ার জন্য কোনো খেলোয়াড়কে ব্ল্যাক বেল্ট পাওয়ার পরও আরও অন্তত ৯টি সফল বছর পাড়ি দিতে হয়।

    ট্রাম্পকে ব্ল্যাক বেল্ট পরিয়ে দারুণ উচ্ছ্বসিত লি ডং-সিওপ বলেন, ‘আমি শুনেছি, ডোনাল্ড ট্রাম্প নাকি তায়কোয়ান্দোতে দারুণ আগ্রহী।’

    ধারণা করা হচ্ছে, এক দক্ষিণ কোরিয়ানের মধ্যস্থতায় লি ও ট্রাম্পের এমন সম্মিলন ঘটেছে।

    ব্ল্যাক বেল্ট পেয়ে ট্রাম্প বলেন, ‘এই সনদ পেয়ে আমি দারুণ খুশি এবং সম্মানিত বোধ করছি। এই সময়ে আত্মরক্ষা করার জন্য তায়কোয়ান্দো একটি কার্যকর মার্শাল আর্ট।’

    ট্রাম্প আশা প্রকাশ করেন, ভবিষ্যতে আবারও হোয়াইট হাউসে যাওয়ার পথে এই বেল্ট তার শোভাবর্ধণ করবে।

    মজার ব্যাপার হলো নবম ডেন ব্ল্যাক বেল্ট পাওয়ার মধ্য দিয়ে মার্শাল আর্টের জগতে ট্রাম্প এখন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সমান মর্যাদা ধারণ করছেন। ২০১৩ সালে দক্ষিণ কোরিয়ায় এক রাষ্ট্রীয় সফরে গেলে পুতিনকে ওই বেল্ট প্রদান করা হয়েছিল।

    তবে মার্শাল আর্টে পুতিনের হাতেখড়ি থাকলেও ডোনাল্ড ট্রাম্প এই বিদ্যার কতটুকু জানেন, তা এখনো অজানা।

    ঠিকানা/এনআই